Breaking News
Home / জেলা সংবাদ / গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে আইন অমান্য করে গড়ে তুলেছে অবৈধ্য রিমন বিড়ির কারখানার, অভিযোগ এবং লক্ষ লক্ষ টাকা রাজস্ব ফাঁকী প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে আইন অমান্য করে গড়ে তুলেছে অবৈধ্য রিমন বিড়ির কারখানার, অভিযোগ এবং লক্ষ লক্ষ টাকা রাজস্ব ফাঁকী প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধার পলাশবাড়ী প্রতিনিধিঃ গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কোচাশহর ইউনিয়নের চাঁদপাড়া জগনাথপুর গ্রামে আইন অমান্য করে গড়ে অবৈধ রিমন বিড়ি কারখানা, পাশে থাকা স্কুলের ছাত্র ছাত্রীদের রয়েছে বিস্তর অভিযোগ এবং লক্ষ লক্ষ টাকা রাজস্ব ফাঁকি প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা। গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধি মশিউর রহমান বাবুর পাঠানো রিপোর্ট।

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কোচাশহর ইউনিয়নের চাঁদপাড়া জগনাথপুর গ্রামের শহিদুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তি গড়ে তুলেছে অবৈধ নকল রিমন বিড়ির কারখানা, পাশে থাকা স্কুলের ছাত্র, ছাত্রীদের রয়েছে বিস্তর অভিযোগ। বিড়ি এমনিতেই মানবদেহের জন্য চরম ক্ষতিকর। খোলামেলা পরিবেশে ছোট বাচ্চাদের দিয়ে আবাসীক এলাকায় ও বাসা বাড়ির ভিতরে বিড়িতে তামাক ভরার কারনে নানা স্বস্থ্য ঝুকির মধ্য বসবাস করছে এলাকাবাসী। তার ওপর অভিযোগ রয়েছে বিড়িতে নকল ব্যান্ডরোল ব্যবহার করে শুল্ক ফাঁকি দিচ্ছে অবৈধ নকল রিমন বিড়ির কারখানাটি। এই কারখানার বিরুদ্ধে অভিযান চালানো হলেও তা বন্ধ হয়নি এখনো বলছেন প্রতিবেশীরা। এতে করে সরকারের শুল্ক ফাঁকি দিয়ে বিপুল পরিমাণ অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে এ রিমন বিড়ির মালিক শহিদুল। আর এ বিষয়ে বেশ কিছু লিখিত অভিযোগ জমা পড়লেও,এসব অভিযোগ আমলে নেননি প্রশাসন। বিড়ির নকল ব্যান্ডরোল ব্যবহার করছে বিড়ি কারখানা টি। এতে সরকার যেমন বড় অঙ্কের রাজস্ব থেকে বি ত হচ্ছে অন্য দিকে পাশে থাকা স্কুলের ছাত্র ছাত্রী শ্বাসকষ্ট, হাঁচি কাশি বাড়ছে এবং ধূমপানকারী নিম্ন আয়ের জনগোষ্ঠীর মানুষ স্বাস্থ্যঝুঁকিতে ভুকছেন

ভক্সপপ স্কুলের ছাত্র ছাত্রী ও লেবার (৩)
স্কুল পড়ুয়া ছাত্র ছাত্রীরা জানান এই বিড়ির কারখানা টি আমাদের স্কুলের পাশে থাকায় শ্বাস কষ্ঠ, হাচি, কাশি এবং স্কুল ড্রেস প্রতিদিনিই ময়লা হয় আর মেশিনের শব্দে আমরা মনোযোগ দিয়ে লেখা পড়া করতে পারি না। তামাকের ডাষ্টের কারনে মারাত্বক স্বাস্থ্য ঝুকিতে স্কুল পড়ুয়া ছাত্র ছাত্রী ও এলাকাবাসী।

ভক্সপপ কারখানার মালিকঃ শহিদুল ইসলাম,
তিনি নিজের দোষ শিকার করে বলেন আমার এই রিমন বিড়ি টা মার্কেটে যাতে চাহিদা হয় সেই জন্য আমি লস করে বিক্রি করছি। আর আমার কারখানা দিয়ে স্কুলের কোনো ক্ষতি হয় না।

ভক্সপপঃ চাঁদপাড়া হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক আব্দুল জসিম,
তিনি বলেন আমার এই স্কুলের পক্ষ থেকে কোথাও কোনো লিখিত অভিযোগ করা হয়নি, তবে এই তামাক টা যখন মেশিনে গুড়া করে তখন গুড়া গুলো ইড়ে এসে বাচ্চাদের হাসি, কাশি সহ আরো বিভিন্ন রকম সমস্যা হয়ে থাকে।

About parinews