Breaking News
Home / জেলা সংবাদ / গাইবান্ধায় ফায়দা লুটতে স্ত্রী-মেয়ে গুমের মিথ্যা নাটক স্বামীর

গাইবান্ধায় ফায়দা লুটতে স্ত্রী-মেয়ে গুমের মিথ্যা নাটক স্বামীর

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধাঃগাইবান্ধায় ফায়দা লুটে নিজেকে নির্দোশ প্রমাণ করতে স্ত্রী নুরুন্নেছা ও মেয়ে মুনিরা আক্তারকে গুম দেখিয়ে আদালত ও থানায় পৃথক মিথ্যা অভিযোগ করেছেন স্বামী আব্দুস সোবহান। এ ঘটনায় প্রতিকার চেয়ে বৃহস্পতিবার (৭মার্চ দুপুরে) প্রেসক্লাব গাইবান্ধায় সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভুক্তভুগি স্ত্রী নুরুন্নেছা বেগম।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করা হয়, গাইবান্ধার পলাশবাড়ি উপজেলার কুমেদপুর গ্রামের আব্দুস সোবহান তার স্ত্রী নুরুন্নেছা ওরফে চায়না বেগমের কাছ থেকে তার বাবার বাড়ি থেকে পাওয়া ৭২ শতক জমি চলতি বছরের ১২ জানুয়ারি সু-কৌশলে রেজিষ্ট্রি দলিল করে নেয়। যাহার দলিল নম্বর-৭৫২/২০২২। পরে স্ত্রীর নামে থাকা আরো ৩৩ শতাংশ জমি লিখে চায়। স্ত্রী নুরুন্নেছা বেগম স্বামী আব্দুস সোবহানের ছলচাতুরী বুঝতে পেরে চাহিত ওই জমি লিখে না দিলে স্ত্রীকে আকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং বিভিন্ন সময়ে মারপিট করে আহত করে। মারপিটে একাধিকবার বিভিন্ন সময়ে হাসপাতালে ভর্তি থেকে চিকিৎসাও নেই নুরুন্নেছা। পরে স্ত্রী নুরুন্নেছা প্রাণ ভয়ে স্বামীর হাত থেকে বাঁচতে বাবার বাড়ি গোাবিন্দগঞ্জ উপজেলার ডুমুর গাছায় আশ্রয় নেই। শুধু স্ত্রীই নয় মামলায় মিথ্যা স্বাক্ষী দিতে রাজি না হওয়ায় মারপিট করা হয় মেয়ে মুনিরা আক্তারকেও। অত্যাচারে অতিষ্ট হয়ে মেয়ে মুনিরা আক্তারও মায়ের সাথে গোবিন্দগঞ্জে নানার বাড়িতে আশ্রয় নেয়। পরে ক্ষিপ্ত হয়ে এবং এসব অপরাধ ঢাকতে স্ত্রী নুরুন্নেছা ঘুম হয়েছে মর্মে তাদের ছোট ছেলে আলামিনকে বাদি বানিয়ে চলতি বছরের ১০ মার্চ গাইবান্ধার পলাশবাড়ি আমলী আদালতে (সিআর ৭১/২২) গুমের একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেন। শুধু তাই নয়, পরে স্ত্রী নুরুন্নেছা ও নুরুন্নেছার ছোট ভাইয়ের ছেলে আব্দুল্লাহ আল মামুনকে (১৬) ফাঁসাতে তাদের মেয়ে মোছা: মুনিরা আক্তার (১৮) কে অপহরন করে গুম করা হয়েছে মর্মে চলতি বছরের ২৯ মার্চ পলাশবাড়ি থানায় একটি মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করেন।
পরে নিরুপায় হয়ে চলতি বছেরের ৩১মার্চ স্বামী আব্দুস সোবহান ও তার কুমন্ত্রণাকারী সোবহানের চাচাতো ভাই আব্দুর রশিদের বিরুদ্ধে গাইবান্ধার নারী শিশু নির্যাতন দমন  ট্রাইব্যুনাল-২ আদালতে নারী শিশু নির্য়াতনের অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেন স্ত্রী নুরুন্নেছা বেগম।
এসময় নিরাপত্তা ও জীবননাশসহ অপূরণীয় ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা কথা জানিয়ে এসবের প্রতিকারসহ সাংবাদিকদের মাধ্যমে নিরাপত্তার জন্য আইনশৃঙ্খরা বাহিনীর প্রতিও দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে নুরুন্নেছার মেয়ে মুনিরা আক্তার ও তার বড় ভাই আব্দুল ওয়াদুদসহ প্রেসক্লাব গাইবান্ধার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

About parinews

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*