Breaking News
Home / জেলা সংবাদ / গাইবান্ধা শাহ আব্দুল হামিদ স্টেডিয়াম মাতিয়ে গেলেন নগর বাউল

গাইবান্ধা শাহ আব্দুল হামিদ স্টেডিয়াম মাতিয়ে গেলেন নগর বাউল

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধাঃ
গাইবান্ধা শাহ আব্দুল হামিদ স্টেডিয়াম মাতালেন নগরবাউল গুরু জেমস।
গাইবান্ধায় শাহ আব্দুল হামিদ স্টেডিয়াম  মঞ্চে উঠে শুরু ‘কবিতা তুমি স্বপ্নচারিণী”না জানি কহি ক্যাসি হে এ জিন্দেগানি’ করেন। 
তার পরনে তারুণ্যের প্রতীক  গাইবান্ধায় নগরবাউল জেমস মঞ্চে উঠলেন রাতে। বিকাল হতে অপেক্ষায় দর্শক গ্যালারি গণ মুখর হয়ে উঠল ‘লাভ ইউ গুরু’ এবং ‘জয় গুরু’ ধ্বনিতে।
বিশ্ববিদ্যালয়ের অসহায়-দরিদ্র শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার জন্য শিক্ষার্থী কল্যাণ তহবিল গঠনের লক্ষ্য নিয়ে গতকাল ৮ মে রবিবার রাতে ‘কনসার্ট স্টুডেন্টস ওয়েলফেয়ার ২০২২’ শিরোনামের কনসার্ট অনুষ্ঠিত হয়। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সংগঠন পাবলিক ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্ট এ্যাসোসিয়েশন অব গাইবান্ধা (পুসাগ) এর আয়োজনে  গাইবান্ধা শাহ্ আব্দুল হামিদ স্টেডিয়ামে জেমস যখন গান শুরু করলেন নেমে এল  নীরবতা সুর আর সূরের  গানের কন্ঠে কন্ঠ মেলানোর খেলা।
অনুষ্ঠানে জেমস শুরু করলেন ‘কবিতা তুমি স্বপ্নচারিণী’ গানটি দিয়ে। এর পরে গেয়ে চলেন ‘লেইস্ ফিতা লেইস্’, ‘গুরু ঘর বানাইলা কী দিয়া’ ‘সুলতানা বিবিয়ানা’। এসময় ‘গুরুর’ সঙ্গে গেয়ে ও নিজের মতো নেচে তরুণ-তরুণীরা আনন্দ প্রকাশ করেছেন। জেমসের গানে মাতোয়ারা স্টেডিয়াম ভরা অন্তত কয়েক হাজার দর্শক। জেমস এরপর গাইলেন ‘দুই দিনের এক জেল’ ‘আমি তারায় তারায় রটিয়ে দেব’ ও ‘দুষ্ট ছেলের দল’ একের পর এক জনপ্রিয় সব গান শুনে দর্শকের আনন্দ-উচ্ছ্বাস বেড়েই চললো। এর পরে জেমস গাইলেন ‘মা’। বিশ্ব মা দিবসে গানটি শুনে আবেগে আপ্লুত হতে দেখা গেল কয়েক জনকে। জেসম ধরলেন ‘পাগলা হাওয়ার তরে। দর্শক সারিতে তখন জেমস উন্মাদনা। জেমস তখন দর্শকের অনুরোধকে প্রাধন্য দিয়ে একের পর এক গেয়ে চললেন। শেষে গাইলেন ‘না জানি কহি ক্যাসি হে এ জিন্দেগানি’ হিন্দিগান। সব মিলিয়ে ১২টি গান গেয়ে গাইবান্ধা মাতিয়ে গেলেন নগরবাউল জেমস।
পাবলিক ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্ট এ্যাসোসিয়েশন অব গাইবান্ধা (পুসাগ) সূত্রে জানা যায়, ‘শিক্ষার্থীদের কল্যাণে মানবিক ও সামাজিক কাজ পরিচালনা করে আসছে পুসাগ। বিশেষ ব্যক্তি ও বিভিন্ন সংগঠনের সহযোগীতায় ‘পুসাগ’ পরিবারের শিক্ষার্থীদের কল্যাণ তহবিল গঠনের উদ্দ্যেশ্যে আমরা লাইভ কনসাটটি করার উদ্যাগ নিয়েছি। অনুষ্ঠানের মাধ্যমে যে অর্থ আয় হবে তার পুরো অর্থই বিশ্ববিদ্যালয়ের অসহায়-দরিদ্র শিক্ষার্থীদের কল্যাণে ব্যয় করা হবে। গ্যালারির টিকিটের দাম ধরা হয়েছিলো ২০০ টাকা, মাঠে স্ট্যান্ডিং টিকিট ৩০০ টাকা এবং মাঠে চেয়ার টিকিটের মূল্য ৫০০ টাকা।
এ বিষয়ে ‘পুসাগ’ সভাপতি হুসাইন মোহাম্মদ জীম সাংবাদিকদের জানান, গাইবান্ধা জেলার এসএসসি-২০১০ ব্যাচের উদ্যোগে গত ২০২০ সালের ৮ আগস্ট দেশের সকল পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিকেল কলেজে পড়ুয়া গাইবান্ধা জেলার শিক্ষার্থীদের নিয়ে গঠিত হয় ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্ট এ্যাসোসিয়েশন অব গাইবান্ধা (পুসাগ)। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই মানবতার কল্যাণে ও মানসিক বিকাশে ১৯২টি কর্মসূচী সফল ভাবে সম্পন্ন করেছে সংগঠনটি। আগামী দিনেও সংগঠনটি এরই ধারাবাহিকতা বজায় রাখবেন।

About parinews