Breaking News
Home / জেলা সংবাদ / গোবিন্দগঞ্জে পল্লী বিদ্যুৎ অফিস এর অবহেলায় বিদ্যুৎ স্পর্শে পৃথক স্থানে দুই জনের মৃত্যু

গোবিন্দগঞ্জে পল্লী বিদ্যুৎ অফিস এর অবহেলায় বিদ্যুৎ স্পর্শে পৃথক স্থানে দুই জনের মৃত্যু

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধাঃ গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কোমরপুর বাজারে অটোবি কারখানার খোলা তারে জড়িয়ে রায়হান বাবু(১১) নামে এক স্কুল ছাত্রের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে অপর দিকে রাজাহার ইউনিয়নের বড়াইপাড়া গ্রামের তোজামের স্ত্রী আকলীমা(৩৫) এর মৃত্যু হয়েছে।এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার রাজাহার ইউনিয়নের বড়াইপাড়া গ্রামে বিদ্যুৎ স্পর্শে গৃহ বধুর মৃত্যু হয়েছে।জানাযায়, পল্লী বিদ্যুৎ অফিস বকেয়া আদায়ের জন্য মিটারের কাছ থেকে বিদ্যুৎতের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে চলে যায় গত কয়েক মাস পূর্বে। তারটিকে না সরাইয়ে এবং কোন প্রকার কসটেপ বা দূর্ঘনা এরানোর জন্য তারটি নিরাপদ স্থানে না সরাইয়ে চলে যায়। বিদ্যুৎতের তারটি ঝুলন্ত অবস্থায় থাকার করনে এবং কোন কসটেপ না থাকার করনে দূর্ঘনা ঘটেছে বলছে এলাকাবাসী। বিদ্যুৎ এর তারটি ঝুলে থাকার কারনে পাশদিয়ে যাওয়ার পথে বিদ্যুৎ এর তারের সাথে স্পর্শ হয় ঘটনা স্থলেই তার মৃত্যু হয়। পল্লী বিদ্যুৎ অফিস এর অবহেলায় হরহামেশায় এ দূর্ঘটনা ঘটেই চলেছে।অপরদিকে কোমারপুর বাজারসংলগ্ন হাঁসবাড়ী রোডের মধ্যরামচন্দ্রপুর গ্রামের তৌহিদুল ইসলামের ছেলে ও হাসবাড়ী বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেনীর স্কুল ছাত্র রায়হান আজ সোমবার সকাল ১১টার দিকে কোমরপুর বাজারের আব্দুস সালামের অটোবি কারখানায় পারটাইম হিসাবে কাজে যোগদিলে, কোমরপুর বাজারের অটোবি কারখানা মালিক আব্দুস সালাম তার কারখানার টিনের চালার উপর পাতা পরিস্কার করার জন্য রায়হানকে টিনের চালায় তুলে দেয় এসময় কারখানার একটি বিদ্যুৎ লাইনের খোলা তাড় টিনের চালার সাথে লেগে বিদ্যুতায়িত হয়ে থাকলে ঘটনাস্থলেই বিদ্যুৎ  স্পর্শে রায়হানের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়। 
এবিষয়ে পল্লী বিদ্যুৎ অফিস এর ডিজিএম আকতারুজ্জামান বলেন, আমি শুনেছি বিষয়টি সরেজমিনে পরিদর্শন না করে আসলে কিছু বলা যাবে না। তবে আমরা লাইনটি বিছিন্ন করেছিলাম। যার ফলে দূর্ঘনা ঘটতে পরে।গোবিন্দগঞ্জে পল্লী বিদ্যুৎ অফিস এর অবহেলায় বিদ্যুৎ স্পর্শে পৃথক স্থানে দুই জনের মৃত্যু
গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কোমরপুর বাজারে অটোবি কারখানার খোলা তারে জড়িয়ে রায়হান বাবু(১১) নামে এক স্কুল ছাত্রের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে অপর দিকে রাজাহার ইউনিয়নের বড়াইপাড়া গ্রামের তোজামের স্ত্রী আকলীমা(৩৫) এর মৃত্যু হয়েছে।এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার রাজাহার ইউনিয়নের বড়াইপাড়া গ্রামে বিদ্যুৎ স্পর্শে গৃহ বধুর মৃত্যু হয়েছে।জানাযায়, পল্লী বিদ্যুৎ অফিস বকেয়া আদায়ের জন্য মিটারের কাছথেকে বিদ্যুৎতের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে চলে যায় গত কয়েক মাস পূর্বে। তারটিকে না সরাইয়ে এবং কোন প্রকার কসটেপ বা দূর্ঘনা এরানোর জন্য তারটি নিরাপদ স্থানে না সরাইয়ে চলে যায়। বিদ্যুৎতের তারটি ঝুলন্ত অবস্থায় থাকার করনে এবং কোন কসটেপ না থাকার করনে দূর্ঘনা ঘটেছে বলছে এলাকাবাসী। বিদ্যুৎ এর তারটি ঝুলে থাকার কারনে পাশদিয়ে যাওয়ার পথে বিদ্যুৎ এর তারের সাথে স্পর্শ হয় ঘটনা স্থলেই তার মৃত্যু হয়। পল্লী বিদ্যুৎ অফিস এর অবহেলায় হরহামেশায় এ দূর্ঘটনা ঘটেই চলেছে।অপরদিকে কোমারপুর বাজারসংলগ্ন হাঁসবাড়ী রোডের মধ্যরামচন্দ্রপুর গ্রামের তৌহিদুল ইসলামের ছেলে ও হাসবাড়ী বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেনীর স্কুল ছাত্র রায়হান আজ সোমবার সকাল ১১টার দিকে কোমরপুর বাজারের আব্দুস সালামের অটোবি কারখানায় পারটাইম হিসাবে কাজে যোগদিলে, কোমরপুর বাজারের অটোবি কারখানা মালিক আব্দুস সালাম তার কারখানার টিনের চালার উপর পাতা পরিস্কার করার জন্য রায়হানকে টিনের চালায় তুলে দেয় এসময় কারখানার একটি বিদ্যুৎ লাইনের খোলা তাড় টিনের চালার সাথে লেগে বিদ্যুতায়িত হয়ে থাকলে ঘটনাস্থলেই বিদ্যুৎ  স্পর্শে রায়হানের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়। 
এবিষয়ে পল্লী বিদ্যুৎ অফিস এর ডিজিএম আকতারুজ্জামান বলেন, আমি শুনেছি বিষয়টি শরেজমিনে পরিদর্শন না করে আসলে কিছু বলা যাবে না। তবে আমরা লাইনটি বিছিন্ন করেছিলাম। যার ফলে দূর্ঘনা ঘটতে পরে।

About parinews

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*