Breaking News
Home / জেলা সংবাদ / গোবিন্দগঞ্জে বিবাদ মেটাতে গিয়ে আহত ছয়জনের মধ্যে একজন মারা গেছেন

গোবিন্দগঞ্জে বিবাদ মেটাতে গিয়ে আহত ছয়জনের মধ্যে একজন মারা গেছেন

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা ঃ গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার শালমারা ইউনিয়নের ঘুঘাগাড়ামারা গ্রামে জমিজমা নিয়ে দ্বন্দ্বের বিবাদ মেটাতে গিয়ে ওই গ্রামের বাসিন্দা দুই আইনজীবীসহ আহত ছয়জনের মধ্যে একজন মারা গেছেন। শুক্রবার রাত ৯টায় বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঘটনার শিকার আইনজীবী মো. সাজু মিয়ার পিতা হাফিজার রহমান (৭০) মারা যান।

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুই নারীকে আটক করেছে পুলিশ।এলাকার লোকজন ও মৃতের স্বজনরা জানান, ঘুঘাগাড়ামারা গ্রামের জবেদ আলীর ছেলে আব্দুস ছাত্তার ও মৃত বাবলু মিয়ার ছেলে নাজমুল ইসলামের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে জমি জমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। সম্প্রতি ছাত্তার মিয়া খুঁটি দিয়ে তার জমির সীমানা নির্ধারণ করেন। এই খুঁটি প্রতিপক্ষ নাজমুল ইসলাম উপড়ে ফেলেন। এরপর মামলা হলে আদালত উভয়পক্ষকেই জমিতে যাওয়ার নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে ওই ওয়ার্ডের নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য শাহজাহান আলীর নেতৃত্বে নাজমুল ইসলামসহ প্রতিপক্ষের লোকজন নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জমির দখল নিতে যায়।

এ নিয়ে দু’পক্ষের ঝগড়া বিবাদ শুরু হলে তার প্রতিবেশী মৃত মছির উদ্দিনের ছেলে হাফিজার রহমান ও তার ছেলে গাইবান্ধা বার এসোসিয়েশনের আইনজীবী এ্যাড. সাজু মিয়া এবং এ্যাড. আব্দুর রশিদ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে উভয়পক্ষকে শান্ত থাকার জন্য অনুরোধ করেন। এ সময় নাজমুল ইসলামসহ তার লোকজন তাদের উপর হামলা চালায়।

এ সময় দুই আইনজীবীসহ ছয়জন গুরুতর আহত হন। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স-এ ভর্তি করান। এর মধ্যে মাথায় গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হাফিজার রহমান ও ছেলে এ্যাড. সাজু মিয়ার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাদের উন্নত চিকিৎসার জন্য বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। রাত ৯টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাফিজার রহমান মারা যান।শুক্রবার রাতে এলাকায় মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে গ্রামবাসী বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে।

এ সময় অভিযুক্ত নাজমুলের বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে বিক্ষুব্ধরা। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে এবং জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ইউপি সদস্য শাহজাহান আলীর স্ত্রী জোসনা বেগম ও কন্যা তিথি আক্তারকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।শনিবার দুপুরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সি-সার্কেল) উদয় সাহা, ওসি ইজার উদ্দিনসহ পুলিশের উর্ধতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।গোবিন্দগঞ্জ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইজার উদ্দিন জানান, এ ঘটনায় একটি মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।

About parinews