Breaking News
Home / জেলা সংবাদ / প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদে সাংবাদিক সম্মেলন

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদে সাংবাদিক সম্মেলন

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধাঃ গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ি উপজেলার ঝালিঙ্গী গ্রামের বাসিন্দা মাহবুব ইসলাম কর্তৃক দায়েরকৃত মিথ্যা প্রমাণিত মামলা প্রসঙ্গে বিস্তারিত বিবরণ তুলে ধরে তার পুত্রবধূ ও সাতারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা উম্মে মাহবুবা খানম ওরফে সোমা সাংবাদিক সম্মেলনে বিস্তারিত বিবরণ তুলে ধরেছেন।
গত ২৭ মে’ ২০২২ ইং অনুষ্ঠিত উক্ত সাংবাদিক সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন তার স্বামী মোঃ হাসানুর রহমান।
প্রধান শিক্ষিকা উম্মে মাহাবুবা খানম সোমা সাংবাদিক সম্মেলনে বক্তব্যে বলেন, সম্প্রতি তার শশুর মোঃ মাহাবুব ইসলাম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশিত “পলাশবাড়িতে পুত্রের বিরুদ্ধে মায়ের প্রতারণা মামলা।। পিতা-মাতা বাড়ি থেকে বিতাড়িত!” শিরোনামের সংবাদ ও সংশ্লিষ্ট সাংবাদিকের কাছে যে বক্তব্য উপস্থাপন করেছেন, তা সম্পূর্ণ ভাবে মিথ্যা ভিত্তিহীন বানোয়াট ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। 
কারণ, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সাবেক স্বাস্থ্য মন্ত্রী মরহুম মোহাম্মদ নাসিম এর আপন মামাতো ভাই ও উল্লেখিত ঝালিঙ্গী গ্রামের মৃত আজিম উদ্দিন সরকারের পুত্র মাহবুব ইসলাম আমার শশুর। তিনি তার পুত্র ও আমার স্বামী হাসানুর রহমানকে ১০/১২ বছর আগে ৩/৪টি হেবা দলিল মূলে সমস্ত স্থাবর সম্পত্তি লিখে দেয়। যা তিনি গাইবান্ধার চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এফিডেভিট মূলে স্বীকারোক্তি প্রদান করেছেন, যার স্বারক নং ১৩২/১৩, তারিখ- ৫/৫/২০১৩ ইং। পরে ওই জমি আমার স্বামী হাসানুর রহমান আমার নামে দলিল মূলে লিখে দেয়।
ইতোমধ্যে তিনি এলাকার কিছু কুচক্রী মহলের প্ররোচনায় পলাশবাড়ি বিজ্ঞ আমলী আদালতে আরো একটি মামলা দায়ের করেন। যার নম্বর সি আর ৩৬/২০২২, এই মামলার বাদী মোছাঃ হাসনা বেগম আমার শাশুড়ি, ১নং স্বাক্ষী উল্লেখিত বাদীর স্বামী অর্থাৎ আমার শশুর, ২নং সাক্ষী মোছাঃ পারুল বেগম বাদীর বোন ও ৩নং সাক্ষী শরিফুল ইসলাম বাদীর আপন ভাইয়ের ছেলে ভাতিজা। তারা সকলেই গাইবান্ধা নোটারি পাবলিক কার্যালয়ে গত ২৮/০২/২০২২ ইং তারিখে এফিডেভিট মূলে স্বীকারোক্তি মুলক জবানবন্দি দিয়েছেন যে, কোন প্রকার মনোমালিন্য ছাড়াই উল্লেখিত মিথ্যা মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনা প্রসঙ্গে তারা কিছুই জানে না এবং তাদেরকে না জানিয়ে স্বাক্ষী হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করেছে।
এছাড়াও আমার শশুর মশাই এফিডেভিট মূলে স্বীকারোক্তি মুলক জবানবন্দি দিয়েছেন যে, আমি ও আমার স্বামীর বিরুদ্ধে তিনি জিডি নং ২৬৩, তারিখ- ১৭/০২/২০২২ ইং এবং জিডি  নং ২৩৮/২২ তারিখ- ২৪/০২/২০২২ ইং করেছেন, তা শত্রুস্থানীয় ব্যক্তিদের কুপরামর্শে করেছে।
আমি একজন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা। তিনি একের পর এক মিথ্যা অভিযোগ এনে আমাকে ও আমার স্বামীকে সামাজিক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন করছে। কারণ- অত্র উপজেলায় শিক্ষা বিভাগে আমার বেশ সুনাম রয়েছে। আমি একজন দায়িত্বশীল শিক্ষক হওয়ায় কাজের দক্ষতা ও পারদর্শিতার কারনে সরকারি ভাবে বেশ কয়েকটি সফর করে এসেছি।

About parinews

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*