Breaking News
Home / জাতীয় / সাঘাটায় ডেলিভারির সময় প্রসুতির মৃত্যু রাতে রাতে মীমাংসা 

সাঘাটায় ডেলিভারির সময় প্রসুতির মৃত্যু রাতে রাতে মীমাংসা 


ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধাঃ গাইবান্ধা জেলার সাঘাটা উপজেলার কচুুয়া ইউনিয়নের গাছাবাড়ী গ্রামের সাবেক মহিলা ইউপি সদস্যের পারিবারিক ভাবে গড়ে তোলা ব্র্যাক ডেলিভারি সেন্টারে  জমজ পুত্র শিশু প্রসবের সময় মুন্নি খাতুন (৩০) নামের এক মায়ের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে । এ ঘটনায় রাতারাতি দামা চাপা দিয়েছে ।  জমজ শিশু একজন অসুস্থ হলে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত ডেলিভারি সেন্টার বন্ধ রেখে অভিযুক্ত আজমিন সুলতানা রিনা পলাতক ছিলেন। গত ৩০ জুন  বিকালে আজমিন সুলতানা রিনার সাথে কথা হলে তিনি জানান, আমার এখানে এক জন  শিশু প্রসব হওয়ার পর আমি দেখতে পাচ্ছি আরো এক জন শিশু পেটের মধ্যে আছে।কিছুক্ষণ পর অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ দেখতে পাই । তখন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার জন্য বলি,  স্থানীয়রা অভিযোগ করেন,  বুধবার সন্ধ্যায় সাঘাটা উপজেলার গাছাবাড়ী গ্রামের বক্তার হোসেনের মেয়ে মুন্নি বেগমের প্রসব বেদনা উঠে । পরে গাছাবাড়ী গ্রামের মানিকগঞ্জ বাজারের পশ্চিম পাশ্বে  ব্র্যাক সেবিকার পরিচয় দানকারী কচুয়া ইউপির সাবেক মহিলা সদস্য আজমিন সুলতানা রিনার সাথে কথা হলে  তিনি রোগীকে নিজের বাড়িতে অবস্থিত ডেলিভারি সেন্টারে প্রসবের চেষ্টা করেন। পরে নরমাল ডেলিভারিতে প্রসবের চেষ্টায় ব্যার্থ হলে জরায়ুতে সিজারের মাধ্যমে জমজ শিশু দুটি ডেলিভারি করলেও প্রচুর রক্তক্ষরণের কারনে মা মুন্নি আক্তার অসুস্থ হয়ে পরলে তাকে হাসপাতালে নেয়ার পথে সে মারা যায়। এ ঘটনায় জমজ শিশু একজন অসুস্থ হলে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য প্রেরন করা হয় । স্থানীয়  প্রভাব শালীরদের হস্তক্ষেভের কারনে রোগীর পরিবার থেকে আইনগত ব্যবস্থা নিতে সাহস পচ্ছেনা । গাইবান্ধার সাঘাটা থানার বোনারপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ রাকিব হোসেনের সাথে মোবাইল ফোনে কথা হলে তিনি জানান, মুন্নীর মৃত্যুর কথা শুনেছি, এবং  তদন্ত কেন্দ্র থেকে অফিসার পাঠিয়েছে ছিলাম।  এই ঘটনায় কেই অভিযোগ করেনি। আমি  অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নিবো।

About parinews