Breaking News
Home / জেলা সংবাদ / সাদুল্লাপুরে ট্যাক্সের নামে সুবিধাভোগিদের টাকা চেয়ারম্যানের পকেটে

সাদুল্লাপুরে ট্যাক্সের নামে সুবিধাভোগিদের টাকা চেয়ারম্যানের পকেটে

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধাঃ সাদুল্লাপুর উপজেলার বনগ্রাম ইউনিয়নের আইএসপিপি-যত্ন প্রকল্পের(শিশু ভাতা) সুবিধাভোগিদের নিকট থেকে অর্থ আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। ট্যাক্সের নামে এই টাকা গ্রহণের অভিযোগ সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান শাহিন সরকারের বিরুদ্ধে। এ নিয়ে ইউএনও বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছে ভুক্তভোগি।

মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) প্রাপ্ত অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, আইএসপিপি-যত্ন প্রকল্পের টাকা বিতরণের কথা বলে এ ইউনিয়নের সুবিধাভোগিদের পরিষদের আসতে বলা হয়। ইউপি চেয়ারম্যানের শাহিন সরকারের এই আহবানে সাড়া দিয়ে গত ২৩ জানুয়ারি সকল সুবিধাভোগি মা’য়েরা পরিষদে আসেন। এসময় তাদের কাছ থেকে ট্যাক্সের নামে প্রত্যেকের ২০০ টাকা করে গ্রহণ করা হয়েছে। তবে এ টাকা রশিদ মূলে নেওয়া হলেও অধিকাংশ রশিদে কোন ক্রমিক নম্বর পাওয়া যায়নি। শিশুদের পুষ্টি ও মনোদৈহিক বিকাশ সাধনের জন্য এই ভাতার টাকা থেকে ২০০ টাকা করে চেয়ারম্যানকে প্রদান করায় অধিকাংশ শিশুদের পুষ্টি খাদ্যোর ঘাটতি হবে বলে জানিয়েছে একাধিক সুবিধাভোগি নারী।

শুধু তায় নয়, এই পরিষদে কেউ জন্মনিবন্ধন সনদ নিতে আসলে তাদের কাছ থেকে সনদ বাবদ ৪৫০ হারে আদায়ের অভিযোগ রয়েছে। অথচ সরকারিভাবে জন্মনিবন্ধন ফি ৫০ টাকা নেওয়ার নিয়ম রয়েছে। এসব নিয়মকে বৃদ্ধাঙ্গালী দেখিয়ে চেয়ারম্যান শাহিন সরকার সেবাগ্রহীতাদের নিকট থেকে ট্যাক্সের নামে টাকা আদায়ে মেতে উঠেছে। ভূমিহীন ব্যক্তিদের কাছ থেকে ট্যাক্স আদায় করলেও ধনাঢ্য ব্যক্তির কাছে কোন প্রকার ট্যাক্স গ্রহণ করা হচ্ছে না। চেয়ারম্যানের এমন কাণ্ডে চরম ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেছে ইউনিয়নের অসহায় পরিবারের মানুষেরা।

নাম প্রকাশ না করা শর্তে জয়েনপুর গ্রাম থেকে আসা যত্ন প্রকল্পের সুবিধা ভোগি এক নারী বলেন, আমার শিশুর ভাতা’র টাকা দেওয়া কথা বলে পরিষদের ট্যাক্স বাবদ ২০০ টাকা টাকা নিয়েছে।

এ বিষয়ে বনগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান শাহিন সরকার বলেন, যত্ন প্রকল্পের টাকা এখনও বিতরণ করা হয়নি। এ ইউনিয়নের যেসব বাসিন্দা জন্মানিবন্ধন সনদ নিতে আসছেন, তাদের কাছ থেকে রশিদমূলে ট্যাক্সের টাকা নেওয়া হচ্ছে।
সাদুল্লাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোছা. রোখসানা বেগম জানান, অভিযোগপত্রটি এখনও দেখা হয়নি। দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ReplyReply allForward

About parinews