গাইবান্ধায় করোনা আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসাথে প্রস্তুত হলো ৮০ শয্যার অস্থায়ী আইসোলেশন সেন্টার

0
27

 

ওসি : করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ সারবিশ্বে মহামারি আকারে দেখা দিয়েছে। কোন ভাবেই থামছে না মৃতুর মিছিল। করোনা ভাইরাস সংক্রামিতদের জরুরী ভিত্তিতে চিকিৎসা সহায়তায় গাইবান্ধা জেলার ৮০ শয্যার একটি অস্থায়ী আইসোলেসন সেন্টার প্রস্তুত করা হয়েছে। জেলা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ কমিটির উদ্দ্যোগে বেসরকারী সংগঠন এসকেএস ফাউন্ডেশন প্রস্তুত করেছেন এই আইসোলেশন সেন্টার। গাইবান্ধা থেকে খালেদ হোসেনের পাঠানো তথ্য ও ছবি নিয়ে বিস্তারিত জানাছেন….

ভিউ : গাইবান্ধায় আমেরিকা ফেরত প্রবাশী মা ও ছেলের শরীরে প্রথম করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পরে এবং পরে তাদের সংস্পর্শে আসা আরও ৩ জনের শরীরে কোভিড-১৯ এর পজিটিভ পাওয়া যায় আর তখনেই নড়ে চরে বসে জেলার স্বাস্থ্য বিভাগ। আর তারি আগাম প্রস্তুতি হিসাবে জেলা সদরের ধানঘড়ায় আনসার ও ভিডিপি প্রশিক্ষণ সেন্টারে মাত্র তিনদিনে এসকেএস ফাউন্ডেশনের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় প্রায় ২০ লক্ষ টাকা ব্যায়ে প্রস্তুত করা হলো এই করোনা আইসোলেশন সেন্টার। এই আইসোলেশন সেন্টারের রোগীর ও ডাক্তারের আবসন ব্যবস্থা, খাদ্য সরবরাহ, পরিস্কার পরিচ্ছন্নতাসহ যাবতীয় ব্যবস্থাপনা করবে এই বেসরকারী সংগঠনটি এবং সরকারী চিকিৎসক গন থাকবেন সিভিল সার্জনের তত্বাবধানে আর জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে করা হবে নিয়মিত মনিটরিং।

ভক্সপপ : এলাকাবাসি

আইসোলেশন সেন্টার এর বাহিরে প্রয়োজনে আরো সহতার করবেন বলে জানালেন, এসকেএস ফাউন্ডেশনের পাবলিক রিলেশন সমন্বয়কারী আর জরুরি প্রয়োজনে এখানে কোন ঘাতি হবে না বলেন জেলা সিভিল সার্জন..
সট : মোঃ আশরাফুল আলম, এসকেএস ফাউন্ডেশনের পাবলিক রিলেশন সমন্বয়কারী।
: ডাঃ এ, বি, এম, আবু হানিফ, গাইবান্ধা জেলা সিভিল সার্জন।

পে-অফ : এই আইসোলেশন সেন্টার প্রস্তুত হওয়ায় এলাকাবাসীর মনে করছেন গাইবান্ধায় করোনা আক্রান্ত রোগীদের সু-চিকিৎসা যেমন নিশ্চিত হবে অন্য দিকে সাধারণ মানুষের মনেও সাহস জোগাবে। শনিবার দুপুরে জেলা প্রশাসন ও জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের কাছে এই আইসোলেশন সেন্টারটি আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করেন এসকেএস ফাউন্ডেশনের পাবলিক রিলেশন সমন্বয়কারী মোঃ আশরাফুল আলম।

2

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here