সাঘাটায় গৃহবধূকে ঘরে তালা দিয়ে আবদ্ধ করে রাখার অভিযোগ

0
60

 

পরিবর্তন প্রতিনিধিঃ গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার পদুমশহর ইউনিয়নের টেপাপদুমশহরগ্রামে জমি বন্ধকের টাকা তোলাকে কেন্দ্র করে শ্বশুর কর্তৃক পুত্র বধূকে ঘরে তালা দিয়ে আবদ্ধ করে রাখার অভিযোগ পাওয়াগেছে।

জানাগেছে উক্ত এলাকার জহুরুল ইসলামের মেয়ের সাথে প্রতিবেশী ইউনুচ আলীর পুত্র ফুলমিয়ার আনুমানিক ১১-১২ বৎসর পূর্বে বিবাহ হয়।বর্তমানে কাতার প্রবাসী ফুলমিয়ার স্ত্রী জেসমিন আরা জেলি তার প্রতিবেশী সহোদর জলিল খলিলের ৪০ শতাংশ জমি এক বৎসর পূর্বে এক লক্ষ টাকায় বন্ধক নেন।

এতে করে জেলির শ্বশুর ইউনূচ ক্ষিপ্ত হয়ে জলিল খলিলের কাছ থেকে জেসমিনের বন্ধক নেয়া জমিনের ধান এবং টাকা আনতে যান।বিষয়টি জানতে পেরে জেলি তার শ্বশুরকে ধানও টাকা না দিতে জলিল খলিলকে বারণ করেন।

এঘটনাকে কেন্দ্র করে গত জানুয়ারী মাসের ১৫ তারিখে ইউনূচ আলি তার পুত্র বধূ জেসমিন আরা জেলিকে ৩ দিন ঘরে তালা বদ্ধ করে রাখেন।
উপায় না পেয়ে জেসমিন আরা তাকে উদ্ধারের জন্য ৯৯৯ নাম্বারে ফোন করেন পরে পুলিশ এসে স্হানীয় সংরক্ষিত মহিলা সদস্য সহিদা বেগমের স্মামী তারা মিয়ার সহযোগিতায় জেলিকে উদ্ধার করেন।

বিবাদমান বিষয়টিকে কেন্দ্র করে সোমবার সকালে জেসমিনকে আবারো তালাবদ্ধ করে রাখেন তারশ্বশুর ইউনূচ আলি।
জানাজানি হলে স্হানীয় সুমন নামেরএক ব্যক্তি লোকজনের সহযোগিতায় তাকে উদ্ধার করেন। এ বিষয়ে জেসমিনের শ্বাশুড়ি ফুলমাই বেগম বিষয়টি অস্বীকার করেন।

নির্যাতনের শিকার জেসমিন আরার পিতা জহুরুল ইসলাম বলেন,আমার জামাতা বিদেশ চাকুরি করেন। সে বাড়িতে না থাকায় এবং আমার মেয়ে একটি জমি বন্ধক নেয়া সহ নানা অজুহাতে মেয়ে জেলিকে তার শ্বশুর ইউনূচ আলি নির্যাতন করেন।গত ডিসেম্বর মাসে তাকে ৩ দিন ঘরে তালাবদ্ধ করে রাখার পর ৯৯৯ নাম্বারে ফোনকরে পুলিশ তাকে উদ্ধার করেন। আজও এ রকম ঘটনা ঘটিয়েছে সে।এবং তার চলাচলে বাধা দিয়ে ঘরের ওয়াল ভেঙে দিয়েছে ইউনূচ।
এ বিষয়ে সাঘাটা থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি বেলাল হোসেন বলেন, তারা থানায় আসলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্হা গ্রহন করা হবে।

2

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here