Breaking News
Home / জেলা সংবাদ / গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার সর্বানন্দ ইউনিয়নের পাড়ের ভিটা দুঃস্থ শীতার্ত মানুষকে কম্বল বিতরন

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার সর্বানন্দ ইউনিয়নের পাড়ের ভিটা দুঃস্থ শীতার্ত মানুষকে কম্বল বিতরন

গাইবান্ধা প্রতিনিধি

স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন পাড়ের ভিটা ফ্রেন্ডশীপ ক্লাবের উদ্যোগে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার সর্বানন্দ ইউনিয়নের পাড়ের ভিটা গ্রামে ১১০ জন দুঃস্থ শীতার্ত মানুষকে কম্বল দেওয়া হয়েছে। শুক্রবার (১৭ ডিসেম্বর) সকালে পাড়ের ভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বরে এসব কম্বল বিতরণ করা হয়।

বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের আইনজীবি মো. আলমগীর হোসেন প্রধান অতিথি হিসেবে এই কম্বল বিতরণের উদ্বোধন করেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে কম্বল বিতরণ করেন পাড়ের ভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. সিদ্দিকুর রহমান সাজু, সর্বানন্দ ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য মো. মগবুল হোসেন এবং নবনির্বাচিত সংরক্ষিত মহিলা সদস্য ১, ২, ৩ নম্বর ওয়ার্ডের শেফালী বেগম।

কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির উপদেষ্টা মো. জুয়েল সর্দার ও মো. মন্টু মিয়া, প্রধান নির্বাহী রাফি সাগর খান, সভাপতি মো. মোমিনুল ইসলাম, সহসভাপতি মো. রিমেল বাবু, সাধারণ সম্পাদক মো. রাকিবুল ইসলাম, সহসাংগঠনিক সম্পাদক তারিকুল ইসলাম, অর্থ সম্পাদক মো. রাসেল মিয়া, প্রচার সম্পাদক মো. ফিরোজ কবির, ক্রীড়া সম্পাদক মো. সুজন মিয়া, সহক্রীড়া সম্পাদক সাগর হোসাইন, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক খায়রুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক মো. রাসেল শেখ, স্বেচ্ছাসেবক সম্পাদক মো. পাপ্পু মিয়া, সদস্য হুমায়ুন মিয়া, তুহিন মিয়া, সীমান্ত, রায়হান মিয়া, আরিফুল ইসলাম, আব্দুল খালেক, নাজমুল হোসাইন, ফিরোজ মিয়া, ফেরদাউস মিয়া, নিরব সর্দার, লাম সর্দার এবং বিশিষ্ট ব্যবসায়ী রোস্তম আলী ও লিংকন সর্দারসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

সর্বানন্দের পাড়ের ভিটা, সর্র্দারপাড়া, নয়াপাড়া, বটের চড়া, কাসেম বাজার, পাবনাইয়া পাড়া, মিরপাড়া ও টুপামারী এলাকার হতদরিদ্র, দুঃস্থ ও অসহায় এসব পরিবারকে কম্বল দেওয়া হয়।
কম্বল পেয়ে পাড়ের ভিটা গ্রামের মর্জিনা বেগম (৪২) বলেন, শীতোত অনেক কষ্টোত আছিনু বাবা। ঠান্ডাত ঠিকমতো ঘুমাবার পাম নাই। তোমরা কম্বলটা দিয়্যা মোর খুব উপকার করলেন। এখন ঠিকমতো ঘুম হবে। আর ঠান্ডা নাগব্যার নয়। নয়া পাড়া এলাকার লতিফ মিয়া (৪৫) বলেন, ট্যাকার অভাবে কম্বল কিনব্যার পাম নাই। কিন্তু কম্বলের দরকার আছিল। যা কামাই করোম তা সংসার চালাতে হিমশিম খাম। এই কম্বল দিয়ে এখন শীত মরবে। কম্বলটা প্যায়া এখন আরামোত থাকমো।

সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক মো. রাকিবুল ইসলাম জানান, অসহায়ের পাশে দাঁড়াতে ‘এসো জড়ো হই মানবতার তরে’ শ্লোগান নিয়ে সমাজের মানুষের কল্যাণে ১৯৯৪ সালে এলাকার তরুণদের নিয়ে গড়ে ওঠে পাড়ের ভিটা ফ্রেন্ডশীপ ক্লাব। প্রতিষ্ঠার পর থেকে প্রতি বছর রমজান মাসে গ্রামবাসীকে ইফতারি করানো হয়। ২০১৯ সাল থেকে প্রতি বছর ঈদ-উল ফিতরের আগে গরীব ও দুঃস্থদের সেমাই, চিনি, বাদাম, কিসমিস, সয়াবিন তেল ও সাবান দেওয়া হয়। চলতি বছরের ২ অক্টোবর সর্বানন্দ ইউনিয়নের পশ্চিমতাড়ি গ্রামের নবম শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রীকে জন্মগত হৃদরোগের চিকিৎসার জন্য ৩৪ হাজার ৫৮০ টাকা দেওয়া হয়। এছাড়া বটের চড়া এলাকার এক অসুস্থ্য বৃদ্ধকে চিকিৎসার জন্য গত ১২ নভেম্বর এক হাজার ৫০০ টাকা দেওয়া হয়েছে। এসব ছাড়াও আরও বিভিন্ন কার্যক্রম হাতে নিয়ে স্বেচ্ছাসেবকরা।

About parinews